News

সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর হচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাস

 গত ২৯ অক্টোবর ২০১৬ রিডিং ক্লাবের উদ্যোগে আব্দুর রাজ্জাক বিদ্যাপীঠে আায়োজিত হয়েছে “উয়ারী বটেশ্বর: শেকড়ের সন্ধানে” শীর্ষক রিডিং ক্লাবের ৩য় মাসিক পাবলিক লেকচার। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিখ্যাত প্রত্নতত্ত্ববিদ সুফি মোস্তাফিজুর রহমান। মূল বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রাচীন ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে, বতমান নরসিংদী জেলার দুটো গ্রাম হচ্ছে উয়ারী-বটেশ্বর। এই উয়ারী-বটেশ্বর অঞ্চলে পাওয়া যায় ফসিল-উড ও পাথরের হাতিয়ার যা এ অঞ্চলে প্রাগৈতিহাসিক যুগে মানব-বসতির ইঙ্গিত প্রদান করে। নিবিড় অনুসন্ধান পরিচালনা করলে হয়ত একদিন প্রাগৈতিহাসিক বসতি আবিষ্কার করা সম্ভব হবে এ অঞ্চল থেকে। উয়ারী বটেশ্বর অঞ্চলে প্রত্নতাত্ত্বিক খনন ও গবেষণা চলমান। প্রতি উৎখননে আবিষ্কৃত হচ্ছে অমূল্য তথ্যসূত্র, সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর হচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাস।

তিনি আরও বলেন, একসময় উয়ারী-বটেশ্বর ছিল নদী বন্দর ও অভ্যন্তরীণ-আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের কেন্দ্র। ২৩০০ বছরের প্রাচীন, ৪০০০ কিলোমিটার দীর্ঘ, বিশ্ববিখ্যাত সিল্ক রুটের সাথে উয়ারী-বটেশ্বর সংযুক্ত ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ের প্রতিনিধি হিসেবে নানান প্রকৃতির জ্যামিতিক নকশা করা পুথি, কাঁচের পুথি, খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতকের রৌপ্য ও ব্রোঞ্চ মুদ্রা, গলায় পরার নানান রঙের পাথরের অলংকার পাওয়া যায়, যা এ অঞ্চলে প্রাচীন শিল্পীদের দক্ষতার পরিচয় বহন করে ও বাংলায় প্রাচীনকালের ব্যবসা বাণিজ্যের প্রমান পাওয়া যায়। প্রাচীন মিশরীয় ও চৈনিক সভ্যতার নিদর্শনগুলোর সাথে উয়ারী-বটেশ্বরের প্রাপ্ত বস্তুগুলোর বিশেষ মিল পাওয়া যায়। উয়ারী-বটেশ্বরের প্রাপ্ত নিদর্শন থেকে বাংলার মসলিনের ইতিহাসে নতুন দিগন্ত উন্মোচনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন সুফি মোস্তাফিজুর রহমান। আড়াই হাজার বছর আগে বাংলার জলবায়ু যে ভিন্ন রকম ছিল তা বোঝা যায় উয়ারী-বটেশ্বরে পাওয়া ভূগর্ভস্থ বসতি থেকে। সাথে সাথে বাংলায় তৎকালীন সময়ে যে সমৃদ্ধ ঔষধ শিল্প ছিল তারও প্রমান পাওয়া যায়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত বাংলা সাহিত্যের বিশিষ্ট গবেষক গোলাম মুরশিদ বলেন, মহাস্থানগড় ও উয়ারী বটেশ্বর সমসাময়িক। তাই এই দুটি স্থানের মধ্যে তুলনামূলক ইতিহাস বিশ্লেষণ করলে অনেক অজানা প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে।

উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্রের ব্লাক হিলস স্টেট ইউনিভার্সিটির ইমিরিটাস অধ্যাপক আহরার আহমদ। তিনি জাতীয় অধ্যাপক আব্দুর রাজ্জাককে উদ্ধৃত করে বলেন, ভালো শিক্ষক প্রশ্নের উত্তর দেন আর মহান শিক্ষক প্রশ্ন উথাপন করেন। সুফি মোস্তাফিজুর রহমান আমাদের জাতীয় ইতিহাসে মহান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

You Might Also Like

No Comments

Leave a Reply