weekly

সময় – আমরা কেন ভবিষ্যৎ মনে রাখতে পারি না

রিডিং ক্লাবের ৭৫ তম পাবলিক লেকচার

 প্রবক্তা: আবদুল্লাহ আল মাহমুদ

শুরুতেই বক্তা তার বক্তঋতার  শিরোনাম “আমরা কেন ভবিষ্যৎ মনে রাখতে পারি না” ব্যাখ্যা করেন । তিনি বলেন , আমরা অতীত মনে রাখতে পারি কিন্তু ভবিষ্যৎ পারি না । ভবিষ্যৎ না পারার ভবিষ্যতের কোন ঘটনা আমাদের মস্তিষ্ক ধারণ করতে পারে না যেভাবে অতীতের ঘটনা পারে । প্রত্যেকটি ঘটনা ঘটার অসংখ্য প্রকার সম্ভবনা থাকলেও অতীতে ঘটে যাওয়া ঘটনা একটি মাত্র উপায়ে ঘটে ,যার ফলে আমাদের মস্তিষ্ক এটাকে মনে রাখতে পারে । অপরপক্ষে , ভবিষ্যতে কোন কিছু ঘটার উপায়ের অসীম সংখ্যক সম্ভবনা থাকে এবং এই সম্ভবনা থেকে একটি সম্ভাবনা যা কি না ঘটবেই তা গণনা করে বের করা আমাদের মস্তিষ্কের ক্ষমতার বাইরে । সময়ের  কথা বলতে গিয়ে বক্তা আদিমকাল থেকে চলে আসা মানুষের মানবিক স্বাতন্ত্র্য নিয়ে কথা বলেন ।  অন্যান্য প্রাণিদের থেকে মানুষের ভিন্নতা সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি দেখান মানুষের মুষ্টিবদ্ধ করার ক্ষমতা , চিন্তাশীলতা এবং একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য- দু পায়ে দাঁড়িয়ে আকাশের দিকে তাকানোর ক্ষমতা । আদিম মানুষের আকাশের দিকে তাকিয়ে তারা গুনে যাওয়া থেকেই জ্যোর্তিবিদ্যার সূচনা , এরপর থেকেই মহাবিশ্ব নিয়ে চিন্তার শুরু ।

বক্তার কথায় উঠে আসে আমরা মানুষ বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে কতটা ক্ষুদ্র , আমাদের এই পৃথিবীর তুলনায় মহাবিশ্ব কতটা বড় । আমাদের চিরচেনা সূর্যের মত প্রায় ১০০ বিলিয়ন নক্ষত্র নিয়ে আমাদের ছায়াপথ , মিল্কিওয়ে গঠিত আর এমন আরো শত বিলিয়ন ছায়াপথে মহাবিশ্ব গঠিত ।  এখন সময় বলতে কী বোঝায় ?

তিনটি ধারণা আমরা সময় থেকে করতে পারি- ১. সময় অবস্থানকে নির্দেশ করে ২. সময়ের পরিমাণ সময় পরিবর্তনের ধারণা দেয় ৩. সময় প্রবাহিত হয় , সময়ের প্রবাহে আমরা প্রবাহিত হই ।

সময়ের কোন মূর্ত ধারণা আমরা পাই না । এটা একটা বিমূর্ত ধারণা । এনট্রপি অর্থাৎ বিশৃঙ্খলার পরিমাণ বাড়তে থাকাই সময়ের বেড়ে যাওয়া । এক্ষেত্রে একটা ডিমকে ভাজার উদাহরণ দেয়া যেতে পারে , একটা ডিমকে যদি ভাজা হয় তবে সেটা যে কোন আকার হতে পারে কিন্তু সেটাকে আর আগের রূপে নিয়ে যাওয়া যায় না , এটাই এনট্রপির পরিবর্তন । আর সময়ের সাথে ডিমটির এই যে পরিবর্তন যা কিনা পূর্বের অবস্থায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয় তাই সময়ের সংজ্ঞা । সময় অর্থ বিশৃঙ্খলার পরিমাপ । শন ক্যারলের এই অভিমতটি বক্তা অত্যন্ত সুন্দর করে তুলে ধরেন ।

প্রত্যেকটি ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা একেকটি প্যারালাল ইউনিভার্স তৈরি করে , ভবিষ্যতের ঘটনা ঘটার অসংখ্য উপায় থেকে একটি সিদ্ধান্ত ক্যালকুলেট করে নিতে পারার মত ক্ষমতা না থাকায় আমরা ভবিষ্যতে যেতে পারি না । মহাবিশ্বের প্রতিটি বস্তুর একেকটি সিদ্ধান্ত একেকটি প্যারালাল জগতের জন্ম দিচ্ছে ,আর অতীতের ক্ষেত্রে একটি ইউনিভার্সের কথা আমরা পাই ,যা বেছে নেয়া হয়েছে । এখন , Time travel সম্ভব কি না ? আইনস্টাইনের Special Theory of Relativity থেকে কাল দীর্ঘায়নের সূত্র থেকে আমরা দেখতে পাই আলোর কাছাকাছি গতিতে গেলে ব্যক্তির বয়স কমে যাবে এবং  আলোর সমান গতিতে গেলে বয়স স্থির হয়ে যাবে এবং আলোর বেশি গতিতে গেলে ব্যক্তি অতীতে চলে যাবেন । আলোর বেশি গতিতে পাঠানো তথ্য তাত্ত্বিকভাবে পাঠানোর আগে পৌঁছে যাবে ! আবার Time travel এর ক্ষেত্রে আরেকটা মজার ধারণা Warm hole ,যেটা বস্তুর মধ্যবর্তী দূরত্বকে কমিয়ে সময়ের ধারণাকে পরিবর্তন করে । বক্তা বলেন , সিনেমার সুপার হিরোর দ্রুততায় যেখানে সময় স্থির হয় সেখানে আসলে স্থির বা ধীর সময়ে হিরোর কাছে কোন আলো বা তথ্যই আসবে না ।

You Might Also Like

No Comments

Leave a Reply